আপত্তিকর চিঠি ফাঁ’স, বি’পাকে অভিনেত্রী শ্রাবন্তী!

ভারতের পশ্চিমব’ঙ্গের বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রের ক্লাবগু’লো সম্পর্কে কমিশনকে লেখা বিজেপি প্রার্থী অভিনেত্রী শ্রাবন্তীর আপ’ত্তিকর চিঠি ফাঁ’স হয়েছে। এ ঘটনায় ক্লাবগু’লোর নেতারা বিজেপি প্রার্থী শ্রাবন্তীর বিরু’দ্ধে একা’ট্টা হয়েছেন।

ম’ঙ্গলবার এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে আনন্দবাজার পত্রিকা। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বিজেপি প্রার্থী তথা অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় বেহালার ক্লাবগু’লোতে দু’র্বৃ’ত্তদের আ’শ্রয় দেওয়া হচ্ছে বলে নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়েছেন।

চিঠিতে শ্রাবন্তী লিখেছেন, ‘‘স্থানীয় ক্লাবগু’লিকে এলাকায় স’ন্ত্রা’স কা’য়েম করতে কাজে লাগানো হচ্ছে, এ ক্ষেত্রে তৃণমূলের পক্ষ থেকে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হচ্ছে। স্থানীয় ক্লাবগু’লিতেই দু’র্বৃত্তদের আশ্রয় দেওয়া হচ্ছে, যাতে তারা নির্বাচনের সময় গো’লমাল পা’কাতে পারে।’’

গত ২ এপ্রিল নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে ওই চিঠিটি পাঠিয়েছেন। বেহালা পশ্চিম আসনে শ্রাবন্তী নির্বাচনে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী তথা চারবারের বি’ধায়ক পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ভোটযু’দ্ধে অবতীর্ণ হয়েছেন।

আগামী ১০ এপ্রিল এই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে। নির্বাচনের আগে শ্রাবন্তীর এই চিঠিটি প্রকাশ্যে চলে আসায় অভিনেত্রীর ওপর বেজায় চটেছেন বেহালা পশ্চিমের ক্লাব সংগঠনগু’লি। এতে বিজেপি শিবির বেকা’য়দায় পড়েছে, বি’পাকে পড়েছেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী।

কারণ, ওই চিঠি ফাঁ’স হওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদে সরব হয়েছেন ক্লাবের নেতারা। এতে তরুণ প্রজন্মের ভো’টাররা শ্রাবন্তী থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে পারেন। সাহাপুর ইয়ুথ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রাকেশ সিংহ বলেন,

‘মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য এই ধরনের চিঠি লেখা হয়েছে। বেহালা ক্লাবগু’লি আমপান ও লকডাউনের সময় যেভাবে পরিষেবা দিয়েছে সেগু’লো হয়তো বিজেপি প্রার্থী জানেন না। সবকিছুর সরলীকরণ করে ক্লাবগু’লিতে রাজনীতির রঙ লাগানোর চেষ্টা হয়েছে।

অভিনেত্রী নিজেকে প্রচারে বেহালার মেয়ে বলে দাবি করছেন। অথচ বেহালা ক্লাব সংস্কৃতি প্রস’ঙ্গে উনি কিছুই জানেন না।’তৃণমূল প্রার্থী পার্থবাবুর মুখ্য নির্বাচনী এজেন্ট অঞ্জন দাস বলেছেন, ‘যারা এই ধরনের কথা বলছেন, তারা বেহালাকে ভাল করে চেনেন না।

কারণ, এক সময় বেহালায় ম’স্তা’নদের জব্দ করতে ক্লাব সংগঠনগু’লিই রাস্তায় নেমেছিল। আসলে হারের আগে থেকেই হারের কারণ সাজিয়ে রাখছেন বিজেপি প্রার্থী। আর তৃণমূল দলগতভাবে কোনও ক্লাবকে অর্থ দেয়নি।

সরকার যেসব ক্লাব সংগঠনকে অর্থ দিয়েছিল, সেখানে ক্লাবের রঙ দেখা হয়নি। বেহালার ক্লাব সংগঠনগু’লিকে অ’প’মান করার আগে তাদের ইতিহাস প্রস’ঙ্গে জেনে নিন বিজেপি প্রার্থী।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *