যে কারনে এক গরীব ঘরের সন্তানকে হা’স’পাতালে দেখতে আসলেন সালমান খান, ভাইরাল ভিডিও!

একজন তারকা বা শিল্পীর সম্পদ হলো তার অনুগামীরা ।কারণ সেই সমস্ত অনুগামীরা তাদের সিনেমা বা শিল্পকলাকে প্রতিনিয়ত সমর’্থন করে বলেই তারা জনপ্রিয়তার নিরিখে তু’ঙ্গে পৌঁছাতে পারে কিন্তু কখনো কখনো দেখা যায়

যে তারকাদের মধ্যে জমে যায় অল্প সময়ের মধ্যে বিপুল অহংকার। যে অনুগামীদের জন্য বা যাদের জন্য আজকে গোটা বিশ্ব তাদেরকে চিনতে পারলো সেই অনুগামীদের সাথে যদি কোন কারণে দেখা হয় তাহলে তারা তাদের কে তাচ্ছিল্য করে ।

কিন্তু কোথাও যেন এর উল্টো চিত্র দেখা যায় সালমান খানের ক্ষেত্রে। সালমান খান ২৭ ডিসেম্বর ১৯৬৫ সালে জন্ম গ্রহণ করেন তিনি হলেন একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা, প্রযোজক এবং টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব।

তিনি মাঝে মাঝে গানও গেয়ে থাকেন। ত্রিশ বছরের অধিক সময়ের কর্মজীবনে তিনি অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করেছেন, তন্মধ্যে রয়েছে চলচ্চিত্র প্রযোজক হিসেবে দুটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও অভিনয়ের জন্য দুটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার।

বলিউডের সবচেয়ে বড় তারকা সালমান খানকে বিশ্ব ও ভারতীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম ব্যবসাসফল অভিনয়শিল্পী বলে আখ্যায়িত করা হয়। ফোর্বস সাময়িকীর ২০১৮ সালের বিশ্বের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক গ্রহীতা ১০০

তারকা বিনোদনদাতা তালিকা অনুসারে সালমান খান $৩৭.৭ মিলিয়ন আয় করে ভারতীয়দের মধ্যে শীর্ষস্থানীয় এবং সারা বিশ্বে ৮২তম স্থান অধিকার করেন । সালমান খানকে সেটি নতুন করে বলার অ’পেক্ষা রাখে না ।

তবে সম্প্রতি যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে সেটি মন ছুঁয়েছে অনেকের এবং এই ধরনের ভিডিও তার ক্ষেত্রে নতুন কিছু নয় ।এর আগেও বিভিন্ন বার দেখা যায় এই বলিউড অভিনেতা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন মানুষের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে ।

তাকে নিয়ে যেমন বি-তর্ক আছে ঠিক তেমনই আছে বিপুল পরিমাণে ভালোবাসা। কারণ প্রচুর সংখ্যক মানুষ এর নিজের দায়িত্বে লেখাপড়া করানো স্বাস্থ্য চি-কিৎসা ব্যবস্থা দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন তিনি ।

ঠিক তেমনি দেখা গেল এই ভিডিওতে। সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে কোন একটি খুদে বাচ্চা যে সালমান খানের বড় ফ্যান বা ভক্ত । সে কোন কারণে অ-সুস্থ হয়ে হা-স-পা-তালে ভর্তি হয়েছে । এবং তার রো-গ অত্যন্ত গু’রুতর সেটি ভিডিও দেখলেই বুঝতে পারবেন তার ইচ্ছে ছিল যে সে একবার সালমান খানের সাথে দেখা করবে।

কিন্তু এই খবর পৌঁছবে কে সালমান খানের কাছে? কোন কারণে সেই খবর পৌঁছে গেছে সালমান খানের কাছে । এবং তিনি সমস্ত কিছু কাজ কে ফেলে দিয়ে হাসপাতালে এসেছেন তার সাথে দেখা করতে ।

যা দেখে ওই খুদে বাচ্চাটি অবাক এবং সে এতটা পরিমাণ খুশি হয়েছে যে সেটা ভাষায় প্রকাশ করতে পারছেনা সে ইতিমধ্যে সেই ভিডিওটি জনপ্রিয়তা পেয়েছে ব্যা-পক পরিমাণে। তার পাশাপাশি সকলের মনকে ছুঁয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *