ছোট ভাই একজন IAS অফিসার। তার কাছ থেকেই অনুপ্রেরণা পেয়ে বড় ভাই ইউপিএসসি পরীক্ষা দেয়, 4 বার ব্যর্থ হওয়ার পরেও পঞ্চমবারের চেষ্টায় তিনি সফল হন।

আমা’দের সফল হওয়ার জন্য, কোনো মহান পুরুষ বা অন্যান্য সফল ব্যক্তির পথ অনুসরণ করার দরকার নেই। বরং, যে অনুপ্রেরণা আমর’া বাইরের জগতে খুঁজি, সেটি আমা’দের চারপাশে এমনকি আমা’দের পরিবারের মধ্যেই থাকে।

এর একটি ভালো উদাহরণ উপস্থাপন করেছেন, ঝাড়খণ্ডের দুমকা শহরে অবস্থিত কুমা’রপাড়ার বাসিন্দা ঋষি আনন্দ। তিনি মধ্যবিত্ত পরিবারের একজন সদস্য ছিলেন। ঋষির পরিবারে মা-বাবা ছাড়াও তার একটা ছোট ভাই রয়েছে।

ঋষির ছোট ভাইয়ের নাম ছিল রবি আনন্দ। তাদের বাড়ির আর্থিক অবস্থা খুব একটা ভালো ছিল না। তাই ঋষি তার প্রাথমিক পড়াশোনা ও উচ্চশিক্ষা সাধারন স্কুল, কলেজ থেকেই শেষ করেছিলেন। এরপরে ঋষি ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়া শেষ করে।

তার পরেই তিনি একটি চাকরি পেয়ে যান। বাড়িতে আর্থিক সহায়তা করার জন্য তিনি এই চাকরিতে যোগদান করেছিলেন। এরপরই তার ছোট ভাই রবি আনন্দ সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় 79 তম স্থান অর্জন করে IAS অফিসার হন।

এরপর ঋষি তার ছোট ভাইয়ের থেকেই অনুপ্রেরণা পেয়ে সিদ্ধান্ত নেন যে, তিনিও ইউপিএসসি পরীক্ষা দিয়ে IAS অফিসার হবেন। এরপর ঋষি তার চাকরি থেকে পদত্যাগ করেন এবং ইউপিএসসি পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি শুরু করেন।

তবে ঋষি এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ’হতে তার ভাইয়ের চেয়েও অনেক বেশি সময় নিয়েছিল। ঋষি যখন প্রথমবার পরীক্ষা দিয়েছিল তখন তার প্রস্তুতি ঠিকভাবে হয়নি, তাই সে প্রথমবার ব্যর্থ হয়েছিলেন।

এরকম করতে করতে তিনি চতুর্থবারের চেষ্টাতেও ব্যর্থ হন। তখন তিনি খুবই ’হতাশ হয়ে পড়েছিলেন। এই সময়ে তার ভাই, বাবা-মা এবং বন্ধুরা তাকে আবার চেষ্টা করার অনুপ্রেরণা এবং সাহস প্রদান করে।

অবশেষে, তিনি পঞ্চমবারের প্রচেষ্টায় ইউপিএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছিলেন। তিনি পরীক্ষায় 145 তম স্থান অর্জন করে IAS অফিসার হয়েছিলেন। ঋষিকে অনেকবারই ব্যর্থতার মুখোমুখি ’হতে হয়েছিল,

কিন্তু তিনি প্রতিবারই নিজের ত্রুটিগু’লোকে সংশোধন করে আবার প্রস্তুতি শুরু করেছিলেন। তিনি বলেছেন যে, আপনি যতবারই ব্যর্থ হন না কেন, আপনি আপনার লক্ষ্যে স্থির থাকবেন এবং কখনো সাহস হারাবেন না এবং আপনার ত্রুটিগু’লিকে সবসময় আন্তরিকতার সাথে গ্রহণ করুন এবং সেগু’লোকে শোধরাবার চেষ্টা করুন।

তাহলে আপনার সাফল্য আসতে বাধ্য। ঋষি তার সাফল্যের কৃতিত্ব তার পরিবারকে দিয়েছেন। ঋষি প্রমাণ করে দিয়েছে যে, যারা নিরলসভাবে চেষ্টা করেন তারা একদিন না একদিন সফলতা অবশ্যই পান।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *