জুতো সেলাই করছেন পিতা, পাশে বসে পড়াশোনা করছে ক্লাসের ফাস্ট বয় ছেলে!

পরিশ্রম ছাড়া জীবনে কোন কিছুই সম্ভব নয়। যে কোন ক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করার জন্য মানুষের পরিশ্রম প্রয়োজন। আমা’দের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমর’া এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি। আমর’া আজকে এমন একটি গল্প বলব যা অবাক করে দেবে আপনাকে।সম্প্রতি সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল ঘটনাগু’লির মাধ্যমে এই ঘটনাটি সামনে এসেছে।তাহলে আসুন আমা’দের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক। সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল ঘটনাবলীর মাঝে থেকে একটি ছবি বেশ ভাইরাল হয়ে উঠেছে। ভাইরাল সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে জুতো সেলাই করছেন বাবা তার

এবার থেকে রেশনে চলে আসলো দারুন কড়া তিন নিয়ম, না মানলেই হবে কড়া শাস্তি, জানিয়ে দিল নবান্ন!

বাজারদর নিয়ন্ত্রণ সঠিক মাত্রায় রাখার জন্য আলাউদ্দিন খিলজির সময় থেকে রেশন ব্যবস্থা চালু হয়েছে । এবং সময়ের সাথে সাথে সেটি থেকে গেছে প্রতিনিয়ত উন্নত হয়েছে তার ব্যবস্থা । দেশের প্রতিটি মানুষ যাতে সঠিক মাত্রা খাবার খেতে পারে এবং দেশের দারিদ্র্য সীমা’র নিচে বসবাসকারী মানুষের রা যাতে খাবারের অভাবে না কষ্ট পেতে হয় তার জন্য রেশন ব্যবস্থা চালু রয়েছে দেশের প্রতিটি প্রান্তে । এবার সে রেশন ব্যবস্থা নিয়ে আসা হল আমূল পরিবর্তন জারি করা হল নতুন

মায়ের সাথে বস্তিতে থাকা ছেলেটি আজ যেভাবে হলেন আমেরিকার রোবট গবেষক

এক সময় মুম্বাইয়ের কুরলা বস্তিতে থাকতেন জয়কুমা’র বৈদ্য। বস্তিতে একটা ছোট ঘরে মায়ের স’’ঙ্গে থাকতেন তিনি। দিনের শেষে পাউরুটি, শিঙাড়া বা চা জুটত তাঁদের কপালে। সেই জয়কুমা’রই এখন যু’ক্তরাষ্ট্রে গবেষণা করছেন। শ্বশুর বাড়ির লোকেরা নলিনীকে বের করে দিয়েছিলেন। ছে’লেকে স’’ঙ্গে নিয়ে তিনি ঠাঁই নেন ওই বস্তিতে। ২০০৩ সাল থেকে তাঁদের অবস্থা আরও খা’রাপ হয়ে যায়। নলিনীর মা একটা চাকরি করতেন। মে’য়েকে তিনি অর্থ সাহায্যও করতেন। কিন্তু ২০০৩ সালে অ’সুস্থতার জন্য তাঁকে চাকরি ছাড়তে হয়।দরিদ্রতার প্রভাব

পশ্চিম বাংলার জনপ্রিয় দশটি ভ্রমণ স্থান, যে জায়গার নাম অনেকেই জানেন না, রইলো ভিডিও সহ!

জীবন যেন একটা খোলা বই। এবং যারা বাইরে কোনদিন পর্যটনের যায়নি অর্থাৎ বাইরের পরিবেশে ঘুরে দেখেনি তারা শুধুমাত্র বইয়ের একটি মাত্র পাতা পড়েছে । সম্পূর্ণ বই পড়তে বাকি থেকে গেছে তাদের । জীবন মানেই তো উপভোগ করা । একঘেয়েমি কাজের চাপ কে পাশে রেখে কখনো কখনো ব্যাগপত্র নিয়ে বেরিয়ে পড়া যেতেই পারে প্রকৃতির উদ্দেশ্যে। কেউ ভালোবাসে পাহাড় কেউ ভালোবাসে সমুদ্র আবার কেউ ভালোবাসে জ-’ঙ্গল । সব ধরনের পরিবেশ কিন্তু রয়েছে আমা’দের এই পশ্চিমব’ঙ্গে ।কথাতে আছে

ভিড় ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে ছেড়ে দিল ট্রেন, পা হ-ড়’কালো যুবতীর, ঘটলো বড় বি-প’ত্তি, ভাইরাল ভিডিও!

দেশ কে সুরক্ষিত রাখতে মোতায়েন করা হয়েছে লক্ষ্য লক্ষ্য সে-না-বা-হিনী । আমা’দের দেশে অনেক যুবক রয়েছেন যারা সে-নাতে যোগ দেওয়ার জন্য নিজেদেরকে প্রস্তুত করতে থাকে । দেশের জন্য প্রাণ উৎসর্গ করা ভাগ্যের ব্যাপার । তবুও অনেকেই সেই সুযোগ থেকে ব-ঞ্চিত হয় । আবার কখনো কখনো পরিবারের অনিচ্ছা থাকার দরুন হাতের সামনে সুযোগ থাকলেও তা গ্রহণ করা হয়ে ওঠে না । আমর’া এর আগে বিভিন্ন ঘটনার মাধ্যমে এর প্রমাণ পেয়ে থাকবো যে ভারতীয় সে-নারা শুধুমাত্র দেশের

ছোট ভাই একজন IAS অফিসার। তার কাছ থেকেই অনুপ্রেরণা পেয়ে বড় ভাই ইউপিএসসি পরীক্ষা দেয়, 4 বার ব্যর্থ হওয়ার পরেও পঞ্চমবারের চেষ্টায় তিনি সফল হন।

আমা’দের সফল হওয়ার জন্য, কোনো মহান পুরুষ বা অন্যান্য সফল ব্যক্তির পথ অনুসরণ করার দরকার নেই। বরং, যে অনুপ্রেরণা আমর’া বাইরের জগতে খুঁজি, সেটি আমা’দের চারপাশে এমনকি আমা’দের পরিবারের মধ্যেই থাকে। এর একটি ভালো উদাহরণ উপস্থাপন করেছেন, ঝাড়খণ্ডের দুমকা শহরে অবস্থিত কুমা’রপাড়ার বাসিন্দা ঋষি আনন্দ। তিনি মধ্যবিত্ত পরিবারের একজন সদস্য ছিলেন। ঋষির পরিবারে মা-বাবা ছাড়াও তার একটা ছোট ভাই রয়েছে। ঋষির ছোট ভাইয়ের নাম ছিল রবি আনন্দ। তাদের বাড়ির আর্থিক অবস্থা খুব একটা ভালো ছিল

সাক্ষাৎ দেবী! করোনা আক্রান্ত শ্বশুরকে পিঠে নিয়ে চিকিৎসার উদ্দেশে রওনা দিল বউমা, নেটদুনিয়ায় প্রশংসার ঝড়

সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে রোজ কত রকমের ঘটনা আমা’দের চোখের সামনে উঠে আসে, বিশেষ করে এই করোনা পরিস্থিতিতে একাধিক ভাইরাল খবর সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমর’া দেখতে পাচ্ছি। আবারো তেমনই এক ভাইরাল ঘটনা উঠে আসলো আমা’দের সামনে। আজকের যুগে যেখানে শ্বশুর-শাশুড়ির নিয়ে একান্নবর্তী পরিবার একপ্রকার দেখাই মেলা ভার, সেখানেই নিজের করোনা আক্রা’ন্ত শ্বশুরকে বাঁ’চাতে তাকে পিঠে তুলে এই হাসপাতালে উদ্দেশ্যে রওনা দিলেন বৌমা। ঘটনাটি ঘটেছে আসামে(Assam)। ৭৫ বছর বয়সী থুলেশ্বর দাসের (Thuleshwar Das) ছেলে সূরজ কর্মসূত্রে থাকে

কাঁকড়া ধরে কাটে দিন, রাতারাতি ‌কোটিপতি বাসন্তীর বাসিন্দা

স্ত্রী, চার সন্তান, আর অসুস্থ বৃ’দ্ধ বাবা-মাকে নিয়ে কষ্টেই চলে সংসার‌। কিন্তু বুধবারের পরে সে সব অতীত। ৬ টাকা দিয়ে কা’টা লটারির টিকিট ১ কোটি টাকার পুরস্কার এনে দিয়েছে দরিদ্র মৎস্যজীবী সুভাষ দলুইকে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী থানার চড়াবিদ্যা এলাকার কুমড়াখালি গ্রামের বাসিন্দা সুভাষ। সুন্দরবনের নদী ও খাঁড়িতে কাঁকড়া ধরেই কোনও মতে দিন কে’টে যাচ্ছিল। জ’’ঙ্গলে বাঘ ও কুমিরের ডেরায় জীবন বাজি রেখেই কাঁকড়া ধরেন সুভাষ। এই কাজে সবার মুখে দু’বেলা খাবার তুলে দেওয়াটাই ছিল

মাত্র সাড়ে ৩ টাকায় ১ জিবি! দুর্দান্ত প্ল্যান অনাল এই টেলিকম সংস্থা

ভারতের টেলিকম বাজারে এখন জিও একচ্ছত্র আধিপত্য কায়েম করেছে। এখন টেলিকম কোম্পানী গু’লির মধ্যে সবথেকে শীর্ষস্থানে রয়েছে মুকেশ আম্বানি সংস্থা রিলায়েন্স জিও। রোজ নতুন নতুন দুর্দান্ত অফার এর গ্রাহকদের নিজের ঝুলিতেই রেখে দিয়েছে জিও। জিও ফের একটি দুর্দান্ত রিচার্জ অফার নিয়ে গ্রাহকদের সামনে হাজির। মাত্র ৩ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে ওয়ান জিবি হাই স্পিড ডাটা। এই অফারটি প্রধানত সেই সমস্ত গ্রাহকদের মাথায় রেখে আনা হয়েছে যারা কম খরচে বেশি পরিমাণ হাই স্পিড ডাটা ব্যবহার করতে চান।

500 টাকার নোট নিয়ে নয়া নির্দেশিকা জারি RBI এর,কীভাবে বুঝবেন 500 টাকার নোট আসল না জা’ল ? রইল বিস্তারিত….

দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি 2016 সালেই পুরনো 500 এবং 1000 টাকার নোট বাতিল করে দিয়েছেন। তিনি অনুমান করেছিলেন যে, এতে দেশের যত রকমের কালো টাকা রয়েছে সেগু’লি পুনরায় সরকারের আওতায় ফিরিয়ে নিয়ে এসে সাধারণ নাগরিকদের একাউন্টে অন্তত 15 লক্ষ টাকা করে দেওয়া যাবে। কিন্তু বাস্তবে এর কিছুই ঘটেনি। সেই নোট-বন্দির সময় আমর’া দেখেছিলাম যে, সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষগু’লো তাদের টাকা পয়সা অচল হয়ে যাওয়ার ভ’য়ে কাজকর্ম বাদ দিয়ে ব্যাংকের লাইনে এসে দাঁড়িয়েছিলেন শুধুমাত্র নিয়মের বেড়াজালের